Homeমাসয়ালা-মাসায়েল

মাসয়ালা : ফেইসবুক-মোবাইল

মাসয়ালা : ফেইসবুক-মোবাইল
Like Tweet Pin it Share Share Email

ধার করে আনা জিনিষ চুরী বা নষ্ট হয়ে গেলে জরিমানা দিতে হবে কিনা?

প্রশ্ন
আমার সাথীর একটি মোবাইল তার কাছে থেকে কয়েকদিনের জন্য নিয়েছিলাম। মোবাইলটি নিয়ে ব্যাংকে গিয়েছিলাম ৷ তখন মোবাইলটি পাঞ্জাবীর সাইড পকেটে ছিল। ব্যাংক থেকে বের হয়ে রিকশায় উঠে দেখি, মোবাইল নেই। আমার জানার বিষয় হল, এখন মোবাইলটির ক্ষতি পূরণ দেওয়া কি আমার জন্য জরুরি?
উত্তর
ধার করা জিনিষ এক প্রকার আমানত ৷ যা নিজের সাধ্যানুযায়ী পুরিপুর্ন হেফাযতের চেষ্টা করার পরও নষ্ট হয়ে গেলে জরিমানা দিতে হয় না ৷ কিন্তু হেফাযতে কোনো ত্রুটি থাকার দরুন নষ্ট হলে জরিমানা দিতে হয় ৷ প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে আপনার বন্ধু যদি মোবাইলটির জরিমানা দাবি করে তাহলে জরিমানা দিতে হবে ।
কেননা, আমাদের দেশের বর্তমান
অবস্থায় ব্যাংক, রাস্তা-ঘাট ও জনসমাগমে চলাবস্থায় মোবাইল ইত্যাদি পাঞ্জাবীর সাইড পকেটে রাখা মোটেও নিরাপদ নয়। সুতরাং পাঞ্জাবীর সাইড পকেট থেকে যেহেতু তা চুরি হয়েছে তাই আপনার পক্ষ থেকে এর হেফাযতের ব্যাপারে ত্রুটি হয়েছে। তাই আপনাকে এর জরিমানা দিতে হবে।
-আলমাবসূত, সারাখসী ১১/১৪৮; রদ্দুল মুহতার ৫/৬৭৮৷
উত্তর প্রদানে মুফতী মেরাজ তাহসীন মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৷

উত্তর দিয়েছেন : মুফতি মেরাজ তাহসিন
ফতোয়া নং: ৭৩২২

তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: ফেইসবুক-মোবাইল

আমি আমার এক বন্ধুর কাছে পাঁচ হাজার টাকায় একটি মোবাইল…

প্রশ্ন

আমি আমার এক বন্ধুর কাছে পাঁচ হাজার টাকায় একটি মোবাইল বিক্রি করি। নগদ পাঁচ শ’ টাকা সে আদায় করে। বাকিটা দুমাসের মধ্যে আদায় করবে বলে। ঘটনাচক্রে যেদিন মোবাইলটি বিক্রি হয় সেদিনই তার হাত থেকে পড়ে মোবাইলটির স্ক্রীন ফেটে যায়। পরদিন এসে সে বলছে, আমি এ মোবাইল নেব না। তবে স্ক্রীন ফাটার কারণে আমার পাচ শ’ টাকা আমাকে না দিলেও চলবে। কিন্তু আমি এতে রাজি হইনি। দু’দিন পর আমি বলেছি, মোবাইল ফেরত দিতে হলে আরো পাচ শ’ টাকা দিতে হবে। হুযুরের কাছে জানতে চাই, এক্ষেত্রে শরীয়ত কী বলে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে যেহেতু মোবাইলের বেচাকেনা সম্পন্ন হয়ে গেছে এবং ক্রেতা তা হস্তগত করেছে এবং তার হাতেই মোবাইলটি ভেঙেছে তাই মোবাইলটি ফেরত দেওয়ার অধিকার তার নেই। তবে আপনি সন্তুষ্টচিত্তে মেনে নিলে সে মোবাইলটি ফেরত দিতে পারবে। সেক্ষেত্রে আপনি মোবাইল স্ক্রীনের যথাযথ মূল্য তার কাছ থেকে নিতে পারবেন।

-বাদায়েউস সনায়ে ৪/৫৪৬; আলবাহরুর রায়েক ৬/১০৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৬/১১৮; রদ্দুল মুহতার ৫/১২৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৭২৯৭

তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: ফেইসবুক-মোবাইল

আমার বন্ধুর বারো হাজার টাকা দামের একটি মোবাইল তার কাছে…

প্রশ্ন

আমার বন্ধুর বারো হাজার টাকা দামের একটি মোবাইল তার কাছে থেকে কয়েকদিন ব্যবহার করার জন্য নিয়ে বাসায় যাচ্ছিলাম। মোবাইলটি পাঞ্জাবীর সাইড পকেটে ছিল। পকেটে কোনো চেইন ও ছিল না। বাসে খুব ভীড় ছিল। বাস থেকে নেমে দেখি, মোবাইল নেই। আমার জানার বিষয় হল, মোবাইলটির ক্ষতি পূরণ দেওয়া কি আমার জন্য জরুরি?

উত্তর

আপনার বন্ধু যদি মোবাইলটির জরিমানা দাবি করে তবে দিয়ে দেওয়াই উচিত। কেননা, আমাদের দেশের বর্তমান অবস্থায় রাস্তা-ঘাটে ও জনসমাগমে চলাবস্থায় মোবাইল ইত্যাদি পাঞ্জাবীর সাইড পকেটে রাখা মোটেও নিরাপদ নয়।

সুতরাং পাঞ্জাবীর পাশের পকেট থেকে যেহেতু তা চুরি হয়েছে তাই আপনার পক্ষ থেকে এর হেফাজতের ব্যাপারে কিছু ত্রুটি হয়েছে এটাই স্বাভাবিক। তাই আপনাকে এর জরিমানা দিতে হবে।

-আলমাবসূত, সারাখসী ১১/১৪৮; রদ্দুল মুহতার ৫/৬৭৮

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
ফতোয়া নং: ৭২৩৩

তারিখ: ২৭/১০/২০১৭
বিষয়: ফেইসবুক-মোবাইল

আমি এক মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টারে একটি এন্ড্রয়েড সেট সার্ভিসের জন্য…

প্রশ্ন

আমি এক মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টারে একটি এন্ড্রয়েড সেট সার্ভিসের জন্য দেই। দোকানদার নিজেই মেরামত করে। সে মোবাইলটা খুলতে গিয়ে একটি সূক্ষ্ম যন্ত্র নষ্ট করে ফেলে। যার মূল্য দেড় হাজার টাকা। আমি তার কাছে এর জরিমানা চাইলে সে বলল, আমি তো ইচ্ছা করে নষ্ট করিনি। হঠাৎ হয়ে গেছে।

আমার প্রশ্ন হল, শরীয়তের দৃষ্টিতে এর ক্ষতিপূরণ নেওয়া আমার জন্য বৈধ হবে কি?

উত্তর

মেরামতকারীর হাতেই যেহেতু নষ্ট হয়েছে তাই আপনি তার থেকে এর ক্ষতিপূরণ নিতে পারবেন।এক্ষেত্রে মেরামতকারী ইচ্ছাকৃত নষ্ট করেছে কি না তা দেখার বিষয় নয়।

-মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা, হাদীস ২১৪৫৮; কিতাবুল আসার ২/৬৬১; কিতাবুল আছল ৩/৫৬১; মাজাল্লাতুল আহকামিল আদলিয়্যা, মাদ্দাহ ৬১১; আদ্দুররুল মুখতার ৬/৬৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার
https://habibur.com/fatwa/topic.net/

Comments (0)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Need Help? Chat with us