Homeজাতীয় সংবাদ

ইজতেমায় যাবেন না মাওলানা সা’দ, থাকবেন কাকরাইল মসজিদে -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইজতেমায় যাবেন না মাওলানা সা’দ, থাকবেন কাকরাইল মসজিদে -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
Like Tweet Pin it Share Share Email

দিল্লির নেজামুদ্দিনের মুরব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভিকে কেন্দ্র করে তাবলিগ জামাতের চলমান সংকটের সমাধান হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, মাওলানা সা’দ ইজতেমা মাঠে যাবেন না। ইজতেমা চলাকালীন তিনি কাকরাইল মসজিদে থাকবেন, পরে সুবিধাজনক সময়ে দেশে ফিরে যাবেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মাওলানা সা’দকে ঘিরে তাবলিগ জামাতের বিবদমান দু’পক্ষ এবং কওমি মাদ্রাসাসহ জ্যেষ্ঠ আলেমদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকের পর তিনি এ কথা জানান।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান,‘মাওলানা সাদের বক্তব্য নিয়ে তাবলিগ জামাতের মুরব্বি ও আলেমদের মধ্যে মতপার্থক্য সৃষ্টি হয়েছিল। এই বৈঠকে দুই পক্ষের আলোচনার মাধ্যমে সুষ্ঠু সমাধান হয়েছে। উভয়পক্ষ এ সমঝোতা প্রস্তাাব মেনে নিয়েছেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ইজতেমার বিষয়ে সরকার কখনোই হস্তক্ষেপ করেনি, এবারও করবে না। ইজতেমার নিরাপত্তায় সব ধরনের সহযোগিতা বরাবরের মতো এবারও দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, এ ইস্যুকে ঘিরে যারা রাস্তা-ঘাটে নেমেছিলেন আশা করছি তারাও আজ ফিরে যাবেন। আর মাওলানা সা’দ যে মন্তব্য করেছেন তার যৌক্তিকতা নিয়ে আলেমরা নিজেরা বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবেন। এ বিষয়ে সরকারের কোনও বক্তব্য নেই।
বৈঠকে আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক উপদেষ্টা শেখ আব্দুল্লাহও উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া পুলিশের আইজিপি একেএম শহীদুল হক, পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) প্রধান জাবেদ পাটওয়ারী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী, ধর্ম সচিব (ভারপ্রাপ্ত) আনিছুর রহমান, কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের সিনিয়র সহসভাপতি আল্লামা আশরাফ আলী, গুলশান আজাদ মসজিদের খতিব মাওলানা মাহমুদুল হাসান, বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, তাবলিগের শুরার সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম, মাওলানা আবদুল হামিদ মাসুম, খান মুহাম্মাদ শাহাবুদ্দীন নাসিম, মাওলানা জিয়া বিন কাসেম, ইউনুছ শিকদার, মাওলানা মোশাররফ হোসাইন প্রমুখ বৈঠকে অংশ নেন।

উল্লেখ্য, দিল্লির নিজামুদ্দিনের মুরব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভির ইজতেমায় অংশ নেওয়াকে ঘিরে গত বুধবার থেকে চরম অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। তাকে প্রতিহত করতে তাবলিগ জামাতের একটি পক্ষ এবং কওমি মাদ্রাসার আলেম ও শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। এ অবস্থায় অচলাবস্থা নিরসনে উপায় খুঁজে বের করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের আহŸানে সচিবালয়ের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৈঠকে বসেন তাবলিগ জামাতের বিবদমান দু’পক্ষ এবং জ্যেষ্ঠ কওমি আলেমরা।

Comments (0)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Need Help? Chat with us