Main Menu

আমার প্রতি তোমার যে মহব্বত আছে , সে জন্য আমাকে ক্ষমা কর

islamic

হযরত যুননূন মিসরী রাহ. থেকে বর্ণিত , তিনি বলেন , আমি একবার তাওয়াফ করছিলাম । হঠাৎ এক নূরের আলোয় আসমান আলোকিত হয়ে উঠল । আমি এ দৃশ্য দেখে আশ্চার্য হলাম । আমি তাওয়াফ শেষ করে কা‘বা ঘরে হেলান দিয়ে বসে ঐ নূর সম্পর্কে চিন্তা করতে লাগলাম । এমন সময় এক বিষন্ন আওয়াজ শুনতে পেলাম । ফলে আওয়াজ অনুসরণ করে দেখি এক মহিলা কা‘বা ঘরের পর্দার সঙ্গে ঝুলে নিচের কবিতা আবৃত্তি করছে :

অর্থ : হে আমার বন্ধু , তুমিই ভালো জান আমার বন্ধু কে ? শরীরের দুবলর্তা ও চোখের অশ্রু  আমার মনের গোপন কথা প্রকাশ করছে । আমি আমার মহব্বত গোপন করেছি , ফলে আমার হৃদয় সংকীর্ণ  হয়ে গেছে ।

তাঁর কবিতা শুনে আমি কাঁদতে লাগলাম । অতঃপর সে মহিলা বলতে লাগল ,  প্রভু আমার ! আমার প্রতি তোমার যে মহব্বত আছে , সে জন্য আমাকে ক্ষমা কর ।

আমি বললাম , হে নারী , তোমার কি এটা বলা উচিত ছিল না যে, ‘তোমার প্রতি আমার যে মহব্বত আছে । ’ তুমি কিভাবে জানলে যে, তোমার প্রতি তাঁর মহব্বত আছে ? সে মহিলা বলল, হে যুননূন ! দূর হও , তুমি কি তাঁর অবগত নও যে , আল্লাহ্ পাকের এমন কিছু বান্দা  বান্দী আছেন , যারা আল্লাহ্ পাককে মহব্বত করেন আর আল্লাহ্ পাকও তাদেরকে মহব্বত করেন । আর আল্লাহ্ পাকের মহব্বত অন্যের মহব্বতের পূবের্ই সৃষ্টি হয়ে থাকে । তোমার কি আল্লাহ পাকের এ কথা স্মরন নেই ?

অর্থ : অতিসত্বর আল্লাহ্ পাক এমন এক সম্প্রদায় নিয়ে আসবেন , যাদেরকে তিনি মহব্বত করবেন এবং তারাও তাঁকে মহব্বত করবে ।

( সূরা মায়েদা : ৫৪)

এই আয়াত আল্লাহ্ পাকের মহব্বতকে প্রথমে উল্লেখ করা হয়েছে । আমি তাকে জিজ্ঞেস করলাম , তুমি কিভাবে অবগত হলে যে , আমি যুননূন মিসরী ? তিনি বললেন , হে বে খবর ! যখন আমার দিল মারেফাতের ময়দানে বিচরণ করা শুরু করল তখনই আমি আল্লাহ্ পাকের মারেফাত লাভ করেছি এবং তার মাধ্যমে আমি তোমাকে চিনে নিয়েছি । আমি বললাম, তোমার শরীর দুবর্ল ও জীর্ণ দেখছি , কিন্তু তুমি তো রুগ্ন নও ? তখন সে কিছু কবিতা পাঠ করল :

অর্থ : আল্লাহ্ প্রেমিকগন দুনিয়াতে রুগ্নই থাকেন । তাঁর রোগ ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পেতে থাকে । ফলে তার চিকিৎসাও রোগ হয়ে যায় । এমনি ভাবে আল্লাহ্ পাককে যে মহব্বত করে , তার স্মরণে সে চিন্তান্বিত থাকে । ফলে সে তাকে দেখতে পায় ।

এরপর  সে বললেন , তুমি তোমার পিছনে দেখ কে আছে ? আমি পেছনে তাকিয়ে কাউকে দেখতে পেলাম না । অতঃপর তার দিকে ফিরে দেখি সেও অদৃশ্য হয়ে গেছে । এরপর  থেকে সবর্দা তার উছিলা দিয়ে দুআ করতাম , ফলে তাঁর বরকতে আমার দুআ কবুল হতো । 

 

Comments

comments






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Facebook

Likebox Slider Pro for WordPress