Homeনবী-রাসূলগনের গল্প

সামুদ্রিক অভিযানে শহীদ হওয়া প্রথম নারী- মোহাম্মদ রাশেদুল হক

সামুদ্রিক অভিযানে শহীদ হওয়া প্রথম নারী- মোহাম্মদ রাশেদুল হক
Like Tweet Pin it Share Share Email

 

 

 

ভূমধ্যসাগরের তৃতীয় বৃহত্তম দ্বীপের নাম সাইপ্রাস। মাত্র ৯২৫০ বর্গকিলোমিটারের এই দ্বীপটির জনসংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। দেশটি দুই ভাগে বিভক্ত। একটি রিপাবলিকান সাইপ্রাস, যা ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত। অন্য অংশ উত্তর সাইপ্রাস নামে পরিচিত। এ অংশটিকে তুর্কী সাইপ্রাস হিসেবেও অনেকে প্রকাশ করে থাকে। কারণ এ অংশটি তুরস্কের অধীনে। এই অংশের অধীবাসীরা মুসলমান। আর দক্ষিণ সাইপ্রাসের জনগণের অধিকাংশই খ্রিস্টান। তবে সেখানকার মোট জনসংখ্যার ৬ শতাংশও মুসলমান।

হযরত উম্মে হারাম বিনতে মিলহান রাযি. ইসলামের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সামুদ্রিক অভিযানের প্রথম শাহাদাত বরণের গৌরব অর্জন করেন। তাঁর এই শাহাদাতের ইঙ্গিত প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজেই দিয়ে গিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর খাদেম হযরত আনাস ইবনে মালেক রাযি. এর খালা। হযরত উবাদা ইবনে সামেত রাযি. এর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। হযরত উসমান রাযি. এর খেলাফতকালে হযরত মুয়াবিয়া রাযি. এর নেতৃত্বে মুসলমানদের প্রথম সামুদ্রিক অভিযানে স্বামীসহ শরিক হন তিনি।

 

অভিযান ছিলো ‘কুবরুস’ বা সাইপ্রাস অভিমুখে। সাইপ্রাস বিজিত হয়। একপর্যায়ে হযরত উম্মে মিলহান রাযি. নিজের বাহন থেকে পড়ে গিয়ে শাহাদাত বরণ করেন। সাইপ্রাসেই তাঁকে দাফন করা হয়।
হযরত উম্মে হারাম রাযি.কে নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সম্মান করতেন এবং তাঁর খোঁজ-খরব রাখতেন। তাঁর বাড়িতে যেতেন।

হযরত উম্মে হারাম বিনতে মিলহান রাযি. নিজেই বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম একদিন দুপুরে আমার ঘরে ঘুমুচ্ছিলেন। হঠাৎ জেগে উঠে মুচকি হাসলেন। আমি (কৌত‚হল বশত) তাঁকে বললাম, আমার মাতা-পিতা আপনার জন্য কোরবান হোক! (হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে) আপনার (এই) হাসির রহস্য কী? তিনি বললেন, “রাজা-বাদশারা যেমন (সদর্পে) সিংহাসনে আরহণ করে, আমার উম্মতের একটি অংশ ঠিক তেমনিভাবে (সদর্পে) সমুদ্রে অভিযান করবে।” আমি বললাম, আমার জন্য দুআ করুন, আল্লাহ যেন আমাকে তাদের অন্তর্ভুক্ত করেন। নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দুআ করে বললেন, “হে আল্লাহ! তাকে ঐ দলভূক্ত করুন।” এরপর নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আবার ঘুমালেন এবং (কিছুক্ষণ পর) মুচকি হেসে জেগে উঠলেন। আমি আবার (কৌত‚হল বশত) তাঁকে বললাম, আমার মাতা-পিতা আপনার জন্য কোরবান হোক! (হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে) আপনার (এই) হাসির রহস্য কী? তিনি বললেন, “রাজা-বাদশারা যেমন (সদর্পে) সিংহাসনে আরহণ করে, আমার উম্মতের একটি অংশ ঠিক তেমনিভাবে (সদর্পে) সমুদ্রে অভিযান করবে।” আমি বললাম, আমার জন্য দুআ করুন; আল্লাহ যেন আমাকে তাদের অন্তর্ভুক্ত করেন। নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, “তুমি প্রথম দলভুক্ত হবে।”… মুসলিম, ২য় খণ্ড

Comments (0)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *